Migration

বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া যেতে কত টাকা লাগে, অস্ট্রেলিয়ায় কাজের বেতন কত, Australia Work Permit Visa

অস্ট্রেলিয়া কত বেতনে কাজ করতে পারবেন বাবার পারমিট ভিসা কত এবং বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া যেতে কত টাকা লাগে স্টুডেন্ট ভিসায় যেতে কেমন খরচ পড়বে এই সকল বিষয় নিয়ে আজকের এই আর্টিকেলটিতে আমি আলোচনা করব।  তো চলুন শুরু করা যাক…

অনেকেরই প্রশ্ন থাকে যে অস্ট্রেলিয়াতে কৃষি শ্রমিক নিয়োগ দেয়া হচ্ছে সে ক্ষেত্রে কিভাবে অস্ট্রেলিয়াতে যেতে হবে এবং কত খরচ হতে পারে এবং কৃষিকাজে অস্ট্রেলিয়া যেতে কত টাকা খরচ পড়বে। অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা এখনো কি চালু আছে কিনা? অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসার দাম কত এবং ভিসা পেতে কতদিন নাগাদ সময় লাগতে পারে সে বিষয়েই আর্টিকেলটিতে যথাসম্ভব আলোচনা করা হয়েছে আশা করি আপনি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়বেন।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা

আপনি হয়তো জেনে থাকবেন অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসার মাধ্যমে কিছু লোক নিয়োগ দেয়া হচ্ছে এবং অনেকেই কিন্তু এই প্রসেসে অস্ট্রেলিয়াতে ওয়ার্ক পারমিট ভিসা আবেদন করে যাচ্ছে।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি খাতের উপর সরকার প্রচুর গুরুত্ব দিয়েছে এবং সে জন্য কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার কৃষি খাতে উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন দেশ থেকে শ্রমিক নিয়োগ দেয়া হচ্ছে এবং  এবং বাংলাদেশ থেকেও অনেক শ্রমিক অস্ট্রেলিয়ায় কাজ করতে যাচ্ছে।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসার মাধ্যমে কিভাবে দ্রুত অস্ট্রেলিয়া যাওয়া যায়?

যোগ্যতাঃ কৃষিখাতে অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার জন্য তেমন কোন শিক্ষাগত যোগ্যতার প্রয়োজন নেই, কিন্তু আপনি যদি খুব সহজে অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা পেতে চান তাহলে কমিউনিকেশন বা যোগাযোগ করার মত কিছু ইংলিশে কথোপকথন আপনাকে জানতে হবে। 

এবং কৃষি বিষয়ে আপনাকে কিছু কাজের দক্ষতা থাকতে হবে যেমন বাংলাদেশ থেকে আপনি যেমন কিছু কিছু কাজ করেছেন কিনা এর কিছু সার্টিফিকেট লাগ্লে ভালো অথবা আপনি চাইলে যুব উন্নয়ন প্রশিক্ষণ বা সরকারি বিভিন্ন প্রশিক্ষণ কেন্দ্র থেকে কৃষি বিষয়ে যে কোন শর্ট কোর্স করে সেখান থেকে সার্টিফিকেট নিতে পারেন এবং সেই সার্টিফিকেট এর মাধ্যমে কিন্তু আপনি সহজেই অস্ট্রেলিয়ান ভিসা পেতে পারেন।

কৃষি ভিসার মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়া কেন যাবেন?

এখন আপনার প্রশ্ন আসতে পারে যে কৃষি ভিসার মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়ায় কেন যাব?  প্রতিউত্তরে আমি বলতে চাই অস্ট্রেলিয়া একটি উন্নত দেশ এবং এখানে কৃষিখাতের সকল কাজে কিন্তু উন্নত মানের ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানির তৈরিকৃত যন্ত্রপাতির মাধ্যমে সম্পন্ন করা হয় এবং কৃষিকাজে বলতে গেলে আপনার কষ্ট আমাদের দেশের তুলনায় অনেক কম হবে।

 কারণ আমাদের দেশে এখনো তেমন প্রযুক্তির ব্যবহার না হলে অস্ট্রেলিয়াতে কিন্তু প্রযুক্তির ব্যবহার খুব বেশি পরিমাণে দেখা যাচ্ছে এবং কৃষি খাতে বিশেষ করে যন্ত্রপাতির মাধ্যমে খুব কম সময়ে জাতে করা ভালো কাজ সম্পন্ন করা যায় এবং ফলন ভালো হয় সেই লক্ষ্যেই অস্ট্রেলিয়ান সরকার এবং বিভিন্ন মানুফাকচারিং কম্পানি অস্ট্রেলিয়াতে কৃষিকাজ কৃষি যন্ত্রপাতির মাধ্যমে আধুনিক কৃষি কাজ করা হয়।

Read More: আমেরিকার ভিসা পাওয়ার যোগ্যতা কি?

 এবং সেখান আপনার বেতন ভাতা এবং অন্যান্য বোনাস সহ যাবতীয় সুযোগ-সুবিধা আপনি খুব সহজেই পাবেন।

অস্ট্রেলিয়ান প্রবাসী কল্যাণ এর স্থানীয় সরকারের মাধ্যমে জানা গেছে যে সেখানে কৃষিক্ষেতে প্রতি দেশ থেকে 1000 করে কর্মী নিয়োগ দেওয়া হবে।  সুতরাং আপনি চাইলে সেখানে আবেদন করতে পারবেন। 

এছাড়াও বর্তমানে বিভিন্ন দেশে কৃষি ভিসা চালু আছে যেমন জাপান কৃষি ভিসা কানাডা ভিসা। আপনি চাইলেই সেই সকল দেশীয় কৃষি ভিসার জন্য আবেদন করতে পারেন এবং আপনি চাইলে সেখানে যে ভালো পরিমাণে টাকা ইনকাম করতে পারেন।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা আবেদন

আপনার যদি মোটামুটি অনলাইন সম্পর্কে ধারনা থাকে তাহলে কিন্তু আপনি অনলাইনের মাধ্যমেই অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন খুব সহজেই। আর যদি আপনি নিজে আবেদন করতে না পারেন তাহলে নিকটস্থ কোনো কম্পিউটার বা ফটোগ্রাফির দোকানে গিয়ে ফটোকপির দোকানে গিয়ে সেখান থেকে কম্পিউটার কম্পিউটার এর মাধ্যমে কিছু টাকার বিনিময়ে অনলাইনে অস্ট্রেলিয়ান কৃষি ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন।

অস্ট্রেলিয়াতে কৃষিকাজে বেতন কত টাকা?

অস্ট্রেলিয়াতে আসলে আপনাকে বেতন দিবে ডলার হিসেবে তবে এটা ইউনাইটেড স্টেট ব্যাংকের নিয়মে না বরং অস্ট্রেলিয়ান ডলার আছে অস্ট্রেলিয়ান ডলার অনুযায়ী আপনাকে 48 হাজার থেকে 50 হাজার ডলার পর্যন্ত দিতে পারে শুধুমাত্র কৃষি কাজের জন্য। তবে আপনার যোগ্যতা এবং কাজের দক্ষতার উপর নির্ভর করে বেতনের তারতম্য হতে পারে অর্থাৎ আপনি এর চাইতে বেশি পেতে পারেন অথবা আর চাইতে কম বেতনে চাকরি করতে পারেন।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা কি এখনও চালু আছে?

আপনারা জবাব প্রশ্ন থাকতে পারে যে অস্ট্রেলিয়ান কৃষি ভিসা কি এখনও চালু আছে কিনা আমি প্রতি উত্তরে বলবঃ  জি হ্যাঁ অবশ্যই অস্ট্রেলিয়া কৃষি ভিসা চালু আছে আপনি চাইলে আজই আবেদন করতে পারবেন।  কারণ অস্ট্রেলিয়ায় শ্রমিক সংকট কিন্তু এখনো রয়েছে।

কিন্তু যেহেতু প্রত্যেকটি দেশ থেকে 1000 জন বা তার কম বেশি করে শ্রমিক নিয়োগ দেওয়া হবে সুতরাং প্রত্যেক দেশ থেকে কিন্তু শ্রমিক নিয়োগে সীমাবদ্ধতা রয়েছে। সুতরাং এই লিমিটেশন শেষ হওয়ার আগে আগে আপনি কৃষি বিষয়ে আবেদন করবেন এটা আমি আশা করি।

এবং ভিসা আবেদন করার পর কিন্তু জয়ী অভিষেক হওয়ার পরে 2030 সালের মধ্যে আপনি অস্ট্রেলিয়াতে পৌছাতে পারবেন। বা যেতে পারবেন। এজন্য আপনার নিকটস্থ এবং বিশ্বস্ত কোন এজেন্সির সাথে যোগাযোগ করুন এবং তাদের কাছ থেকে সঠিক এবং প্রয়োজনীয় পরামর্শ নিয়ে দিক নির্দেশনা অনুযায়ী ভিসা আবেদন প্রসেস চালু করে দিন। 

পড়তে পারেনঃ ইউরোপের কোন দেশের ভিসা সহজে পাওয়া যায়?

অস্ট্রেলিয়া কৃষি কাজের ভিসার জন্য আবেদন করার প্রক্রিয়া ও রিকোয়ারমেন্ট

অস্ট্রেলিয়া কৃষক ভিসার জন্য আবেদন করার ক্ষেত্রে আপনাকে কিছু রিকোয়ারমেন্ট এবং প্রক্রিয়া মানতে হবে যেগুলো নিম্নে উল্লেখ করা হলোঃ

  • যদি আপনি কৃষি ওয়ার্ক পারমিট ভিসা তে আবেদন করতে চান তাহলে তেমন শিক্ষাগত যোগ্যতার প্রয়োজন নেই তবে কমিউনিকেশন করার জন্য বা যোগাযোগ রক্ষার ক্ষেত্রে কিছু ইংলিশ জানা প্রয়োজন। অর্থাৎ ইংলিশে দক্ষতা বিষয়ে সার্টিফিকেট থাকতে হবে।
  •  আপনার অবশ্যই কৃষি বিষয়ে কাজের দক্ষতার সার্টিফিকেট থাকতে হবে।
  • এবং ডকুমেন্ট হিসেবে আপনার এনআইডি কার্ডের ফটোকপি এটাচ করতে হবে।
  • এবং ছয় মাস মেয়াদি পাসপোর্ট থাকতে হবে মিনিমাম।
  • স্থানীয় চেয়ারম্যান সার্টিফিকেট থাকতে হবে।

কৃষি বিষয়ে অস্ট্রেলিয়া যেতে কত টাকা লাগে?

বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া যেতে কত টাকা লাগে
বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া যেতে কত টাকা লাগে

আসলে অস্ট্রেলিয়া যেতে কত টাকা লাগে এটা নির্ভর করবে আপনি কি কাজের জন্য সেখানে যাচ্ছেন।  তাছাড়া বিভিন্ন এজেন্সির মাধ্যমে বিভিন্ন রকম টাকা খরচ করে তারপর আপনাকে অস্ট্রেলিয়া যেতে হতে পারে।

তবে যদি এশিয়ার মধ্যে কোন এম্বাসির মাধ্যমে আপনি ভিসার জন্য আবেদন করে থাকেন তাহলে আপনার সর্বনিম্ন চার লক্ষ থেকে নিয়ে সর্বোচ্চ 10 লক্ষ টাকা পর্যন্ত খরচ হতে পারে অস্ট্রেলিয়া কাজের ভিসায় যেতে। 

যেহেতু এক এজেন্সীর কাছে একেক রকমের খরচ প্রদান করতে হয় সুতরাং আপনি বিশ্বস্ত কোন এজেন্সির নিকটস্থ হয়ে তার কাছ থেকে পরামর্শ নিবেন এবং পরবর্তীতে নিজে নিজেই সিদ্ধান্ত নিবেন বা যারা অলরেডি অস্ট্রেলিয়াতে আছে তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করে নিশ্চিত হয়ে নিন যে কেমন খরচ হতে পারে এবং কত টাকার মতো লাগতে পারে।

অস্ট্রেলিয়া কৃষি বিষয়ে যে কতদিন লাগে?

বিভিন্ন ভেরিফিকেশন এবং যার মাধ্যমে সর্বনিম্ন তিন সপ্তাহ থেকে নিয়ে আর বেশ কিছুদিন সময় বেশি রাখতে পারে এই সময়ের মধ্যে আপনি এড়িয়ে যেতে পারবেন। 

পরিশেষে,

সবশেষে আপনাকে বলব অস্ট্রেলিয়া কৃষি বিষ এর মাধ্যমে যদি আপনি যেতে চান তাহলে অবশ্যই আপনাকে খেয়াল রাখতে হবে যে এক্ষেত্রে লিমিটেশন রয়েছে অর্থাৎ সীমাবদ্ধতা রয়েছে। এবং দালালের খপ্পর থেকে দূরে থাকবেন যদি সাবধানতা অবলম্বন না করেন তাহলে হয়তোবা আপনার বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হতে লাগতে পারে। 

আশা করি আপনি বুঝতে পেরেছেন বাংলাদেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া যেতে কত টাকা লাগে এবং সে সম্পর্কে আমি যথেষ্ট আলোচনা করার চেষ্টা করেছি এছাড়া আপনি চাইলে টুরিস্ট ভিসায় ছবিসহ বিভিন্ন রকমের পারমিট ভিসার মাধ্যমে আপনি অস্ট্রেলিয়াতে যেতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Adblock Detected

Please consider supporting us by disabling your ad blocker